শনিবার ২১শে এপ্রিল ২০১৮ রাত ০৯:১৫:৩০

Print Friendly and PDF

খালেদা জিয়া সেতু সম্পর্কে কিছুই বোঝেন না: প্রধানমন্ত্রী


নিজস্ব প্রতিবেদক:

প্রকাশিত : বুধবার ৩রা জানুয়ারী ২০১৮ সন্ধ্যা ০৭:৩৫:৪৪, আপডেট : শনিবার ২১শে এপ্রিল ২০১৮ রাত ০৯:১৫:৩০,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ২৬৮ বার

বুধবার অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা- ফোকাস বাংলা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, খালেদা জিয়া সেতু সম্পর্কে কিছুই বোঝেন না। সব কিছু না বুঝেই তার কথা বলা অভ্যাস। যা খুশি তাই বলে থাকেন। উনি যা বুঝেছেন, তাই বলেছেন। পদ্ম সেতু নিয়ে খালেদার বক্তব্যের ব্যাপারে তার বলার কিছুই নেই।

বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে তার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে অনির্ধারিত আলোচনায় তিনি এমন মন্তব্য করেন। বৈঠকের একাধিক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

মঙ্গলবার ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সভায় নির্মাণাধীন পদ্মা সেতু প্রসঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেন, 'জোড়াতালি দিয়ে পদ্মা সেতু বানানো হচ্ছে। এই সেতুতে ঝুঁকি রয়েছে। কেউ যেন সেতু দিয়ে চলাচল না করেন।'

ছাত্রদলের ৩৯তম প্রষ্ঠিাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত ছাত্রসমাবেশে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের দরজা বন্ধ প্রসঙ্গ নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়।

এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মিলনায়তনের ভাড়ার টাকা পরিশোধ না করায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন কর্তৃপক্ষই দরজা বন্ধ রেখেছিল। পরে ওবায়দুল কাদেরের হস্তক্ষেপে দরজা খুলে দেওয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, 'তালা বন্ধের ঘটনাটি জানার পর দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে জানাই। এটা কেন হচ্ছে, এতে সরকারের সমালোচনা হবে। বিষয়টি তাকে দেখতে বলি। ওবায়দুল কাদের ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সভাপতির কাছে জানতে চান- কেন মিলনায়তনের দরজা বন্ধ রাখা হয়েছে? ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন কর্তৃপক্ষ ওবায়দুল কাদেরকে জানায়- ভাড়ার টাকা পরিশোধ হয়নি বলেই দরজা বন্ধ রাখা হয়েছে। কাদের তখন তাদের বলেছে ভাড়ার টাকা পরিশোধ হয়েছি কি-হয়নি সেটা দেখা যাবে। তাদের যেহেতু ভাড়া দেওয়া হয়েছে তাড়াতাড়ি দরজা খুলে দিন। এটা নিয়ে সরকারের সমালোচনা হবে। এরপর দরজা খুলে দেয় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন।'

এছাড়াও বৈঠকে 'মানসিক স্বাস্থ্য আইন-২০১৭' এর খসড়া নীতিগত অনুমোদনসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীদের সফর ও চুক্তি সম্পর্কে মন্ত্রিসভায় অবহিত করা হয়।