রবিবার ২২শে এপ্রিল ২০১৮ দুপুর ১২:৩২:৫৪

Print Friendly and PDF

শিক্ষক মুবাশ্বারের জঙ্গি কানেকশনের বিষয় জানেন না পরিবার সরকারবিরোধী প্রচারণা ও জঙ্গিবাদ উসকে দিচ্ছিলেন নিখোঁজ মুবাশ্বার!


নিজস্ব প্রতিবেদক:

প্রকাশিত : রবিবার ১২ই নভেম্বর ২০১৭ সকাল ১০:১১:৪৭, আপডেট : রবিবার ২২শে এপ্রিল ২০১৮ দুপুর ১২:৩২:৫৪,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ৬২১ বার

ফাইল ছবি

সময়নিউজ ডট নেট:
ঢাকা: রাজধানীর আইডিবি ভবনের সামনে থেকে মঙ্গলবার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদের সহকারী অধ্যাপক ড. মুবাশ্বার হাসান সিজারের নিখোঁজ নিয়ে নতুন তথ্য পেয়েছে গোয়েন্দারা।

নিখোঁজের পর তার গবেষণা ও নিজের সম্পাদিত অনলাইন পোর্টাল ‘বিডি পলিটিকো’ নিয়ে তদন্তে চাঞ্চল্যকর তথ্য পেয়েছে একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা। গোয়েন্দা সংস্থার দাবি, শিক্ষকতা ও জঙ্গিবিরোধী গবেষণার আড়ালে সরকারবিরোধী প্রচারণা ও জঙ্গিবাদ উসকে দিচ্ছিলেন তিনি।

তার সঙ্গে দেশি-বিদেশি জঙ্গিগোষ্ঠীর কানেকশনের তথ্য পেয়েছে গোয়েন্দারা। সম্প্রতি দেশে জঙ্গি হামলার সঙ্গে তার কোনো কানেকশন ছিল কিনা- সেটাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। একইসঙ্গে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের যেসব ছাত্র জঙ্গিবাদে জড়িয়েছে তাদের সঙ্গে মুবাশ্বারের যোগাযোগের বিষয়টিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

তার জঙ্গি কানেকশন গোয়েন্দা সংস্থার নজরে আসায় স্বেচ্ছায় তিনি আত্মগোপনে চলে গেছেন বলে ধারণা একাধিক গোয়েন্দা সংস্থার। তাকে উদ্ধার ও নিখোঁজের কারণ খতিয়ে দেখছেন পুলিশ, র‌্যাব, ডিবিসহ একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করছে।

এদিকে নিখোঁজের একমাস পরও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ সাংবাদিক উৎপল দাসের। এছাড়া গত তিনমাসে রাজধানী থেকে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ও প্রকাশকসহ আরও ১০ জন নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাদের মধ্যে দু’জন ফিরে এলেও বাকিদের সন্ধান মেলেনি।

নিখোঁজ পরিবারগুলোর অভিযোগ, তাদের অধিকাংশকেই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয়ে সাদা পোশাকে তুলে নেয়া হয়।

নতুন করে নিখোঁজ হওয়া, ফিরে না আসা ও নিখোঁজের ঘটনাগুলোর সঠিক তদন্ত না হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন মানবাধিকার কর্মীরা। নিখোঁজদের মধ্যে কেউ কেউ বাসায় ফিরলেও তারা রহস্যজনক কারণে ঘটনার বিষয়ে মুখ খুলছেন না।

যেমন কবি-সাহিত্যিক ফরহাদ মজহার, ব্যবসায়ী অনিরুদ্ধ রায়, ব্যাংকার শামীম বাসায় ফিরলেও এ বিষয়ে কিছু বলতে নারাজ।

সর্বশেষ ৮ নভেম্বর ভোরে রাজধানীর গুলশানের ৫৭ নম্বর রোডের বাড়ি থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে করিম ইন্টারন্যাশনাল প্রকাশনা সংস্থার মালিক করিমকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। পরদিন এ নিয়ে গুলশান থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) হয়েছে। মঙ্গলবার শাজাহানপুর এলাকা থেকে নিখোঁজ হন ফল ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন।

এদিন রাজধানীর বনশ্রী থেকে নিখোঁজ ফার্মাসিস্ট জামাল রহমান বৃহস্পতিবার গভীর রাতে বাসায় ফিরে আসেন। বাসায় ফিরে এসেছেন নিখোঁজ দুই প্রকৌশলী ভাইয়ের মধ্যে আসাদুজ্জামান।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দাবি, নিখোঁজ ব্যক্তিদের উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে তারা। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন পরিবারগুলো।

ড. মুবাশ্বারের জঙ্গি কানেকশের বিষয়ে পরিবার কিছু জানেন না। এ বিষয়ে জানতে শনিবার তার বাবার মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে ফোন ধরেন তার বোন তামান্না। তিনি বলেন, আমার ভাইয়ের সন্ধান মেলেনি। এ বিষয়ে আমাদের আর কিছু বলার নেই।

র‌্যাব-৩-এর অধিনায়ক লে. কর্নেল এমরানুল হাসান বলেন, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষককে খুঁজে পেতে সব ধরনের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এখনও বলার মতো কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান বলেন, নিখোঁজ ব্যক্তিদের সন্ধানে পুলিশ ও গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে।