বৃহঃস্পতিবার ১৯শে এপ্রিল ২০১৮ বিকাল ০৩:৩১:৪৮

Print Friendly and PDF

আইনি প্রক্রিয়ায় খালেদা জিয়ার মুক্তিতে সরকার বাধা দিচ্ছে: ফখরুল


নিজস্ব প্রতিবেদক:

প্রকাশিত : সোমবার ১৯শে মার্চ ২০১৮ দুপুর ০১:২৮:৪৮, আপডেট : বৃহঃস্পতিবার ১৯শে এপ্রিল ২০১৮ বিকাল ০৩:৩১:৪৮,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৭৯ বার

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আইনি প্রক্রিয়ায় মুক্ত করতে সরকার বাধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন আপিল বিভাগ স্থগিত রাখার পেছনে সরকারের ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

সোমবার দুপুরে নয়াপল্টনের বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব।

এর আগে সকালে খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন আগামী ৮ মে পর্যন্ত স্থগিত করেন আপিল বিভাগ।

এর পর বিএনপির পক্ষ থেকে প্রতিক্রিয়া জানানোর জন্য সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

ফখরুল বলেন, অত্যন্ত কৌশলে খালেদা জিয়ার জামিন আটকে দিয়েছে। তাকে কোনো আইনি সুবিধা দেয়া হচ্ছে না। বিচার বিভাগকে সুকৌশলে ব্যবহার করে খালেদা জিয়ার জামিন আটকে দিয়েছে। আদালত কিন্তু খালেদা জিয়ার জামিন বাতিল করেননি।

তিনি আরও বলেন, ন্যায়বিচার থেকে খালেদা জিয়া বঞ্চিত হয়েছেন। দেশের মানুষের বিশ্বাস ছিল, খালেদা জিয়া জামিন পাবেন। কিন্তু তাকে সেটি দেয়া হয়নি।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়াকে দীর্ঘদিন কারাগারে রাখা মানে সরকারের নীলনকশা অনুযায়ী একতরফা নির্বাচন করে আবারও ক্ষমতায় যাওয়া। কারণ এরই মধ্যে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেই দিয়েছেন- নির্বাচনে বিজয় এখন আনুষ্ঠানিকতা মাত্র।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া যে মামলার সঙ্গে সম্পৃক্ত নয়, তাকে সেই মামলায় সাজা দিয়ে কারাগারে রাখা হয়েছে। গতকাল খালেদা জিয়ার জামিন শুনানিতে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, তাকে সাজা দেয়া হয়েছে বিশ্বাস ভঙ্গের কারণে, দুর্নীতির অভিযোগে নয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবীর খোকন, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন। এর পর থেকে তিনি নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন।