বৃহঃস্পতিবার ২৬শে এপ্রিল ২০১৮ বিকাল ০৩:৫৪:২৪

Print Friendly and PDF

ছিনতাই করা স্বর্ণ টাকাসহ হাজারীবাগের আল আমিন গ্রেফতার


জসিম মেহেদী

প্রকাশিত : বৃহঃস্পতিবার ৫ই অক্টোবর ২০১৭ সকাল ০৯:৫০:২৪, আপডেট : বৃহঃস্পতিবার ২৬শে এপ্রিল ২০১৮ বিকাল ০৩:৫৪:২৪,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ৪২৬ বার

সময়নিউজ ডট নেট:
ঢাকা: রাজধানীর হাজারীবাগ থেকে ছিনতাই করা স্বর্ণ টাকাসহ আলামিন সাব্বির নামের এক যুবোককে (২৬) গ্রেফতার করেছে সিংগাইর থানা পুলিশ। তার বাবার নাম আফসার উদ্দিন। তার কাছ থেকে নগদ ৫ লাখ ৪ হাজার টাকা, ১৬৮ ভরি স্বর্ণ ও একটি ডিএসএলআর ক্যামেরাসহ ৪টি ওয়াকি-টকি উদ্ধার কর হয়।

জানা গেছে, গত রোববার সন্ধ্যার দিকে সিংগাইর উপজেলার চারিগ্রাম বাজারের স্বর্ণ ব্যবসায়ী মো. মনির হোসেনের ম্যানেজার কমল একটি স্কুল ব্যাগে করে ১৬৮ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ ৫ লাখ ৪ হাজার টাকা নিয়ে মোটরসাইকেলে করে তার মালিকের বাড়ি যাচ্ছিলেন। কমল চারিগ্রাম পুরনো বাসস্ট্যান্ড মোড়ে পৌঁছালে সেখানে আগে থেকে অবস্থান করা একটি সাদা রঙের মাইক্রোবাস (ঢাকা মেট্রো-চ-৫১-৪৬৪১) মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। পরে ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে ৭/৮ জন লোক তাকে মারধর করে টাকা ও স্বর্ণের ব্যাগটি ছিনিয়ে নেয়। এসময় ম্যানেজার কমলের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে ছিনতাইকারী চক্রের অন্য সদস্যরা দ্রুত পালিয়ে গেলেও সুমন (৩০) নামে এক ছিনতাইকারীকে আটক করে এলাকাবাসী। সুমন ভোলা লালমোহন উপজেলার চর তিথির গ্রামের কালু ওরফে উদ্রিসের ছেলে।

এসময় সিংগাইর থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশের দুটি টহল দল ও স্থানীয় লোকজন মোটরসাইকেলে করে ছিনকারীদের বহনকারী মাইক্রোবাসের পিছু নেয়। পরে ঢাকা জেলার নবাবগঞ্জ উপজেলার বালুখ- বাজারের দক্ষিণ পাশের বালুর মাঠ থেকে মাইক্রোবাসটি আটক করা হয়। মাইক্রেবাসে থাকা ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যরা পালিয়ে যাওয়ার চেস্টা করলে পুলিশ ও জনতা তাদের আটক করে।

আটক ছিনতাইকারীরা হলো, শরিয়তপুর উপজেলার নড়িয়া উপজেলার মূলফদগঞ্জ গ্রামের তোফাজ্জল হোসেন শান্তর ছেলে সাজ্জাদ হোসেন সম্রাট (২৭), মাইক্রেবাসের চালক কুড়িগ্রাম জেলার বুড়িঙ্গামারী উপজেলার ময়দাশ গ্রামের মৃত তৈজদ্দিনের ছেলে হামিদুল ইসলাম (৩৬), ঢাকার ২১৮/৫ পশ্চিম আগারগাঁও বাসিন্দা আব্দুর রব সুলতানের ছেলে রহিম সুলতান।

আটকদের দেয়া তথ্যমতে, গত সোমবার ভোরে নবাবগঞ্জ ও মানিকগঞ্জ পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঢাকার হাজারীবাগ এলাকার চর ওয়াশপুরের আফসার উদ্দিনের ছেলে আলামিন সাব্বিরকে আটক করে।

৫ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতারের বিষয়ে মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার মাহফুজুর রহমান গত সোমবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ ব্যাপারে মনির জুয়েলার্সের মালিক মনির হোসেন বাদী হয়ে সিংগাইর থানায় একটি মামলা করেছেন।

আলামিন সাব্বির ছিনতাইকারী চক্রের হোতা। সে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানা ৩৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলার তারেকুজ্জামান রাজীব ও যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম এর ছত্রছায়ায় দীর্ঘদিন চাঁদাবাজী, ছিনতাই, ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ড করে আসছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

আল আমিন নিজেকে যুবলীগ নেতাসহ ভূয়া পরিচয়ে সাধারণ মানুষের সাথে মিশে দীর্ঘদিন প্রতারণা করে আসছে- তার বিরুদ্ধে এরকম অভিযোগও রয়েছে। আলামিনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের কারণে ভূক্তভুগিরা তার বিরুদ্ধে কথা বলতেও ভয় পায়।