শুক্রবার ২৩শে ফেব্রুয়ারি ২০১৮ ভোর ০৪:৩৬:৫৪

Print Friendly and PDF

সেই টিপু সুলতানের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধার সংবাদ সম্মেলন


নিজস্ব প্রতিবেদক:

প্রকাশিত : মঙ্গলবার ২৩শে জানুয়ারী ২০১৮ সন্ধ্যা ০৬:১৬:৩৯, আপডেট : শুক্রবার ২৩শে ফেব্রুয়ারি ২০১৮ ভোর ০৪:৩৬:৫৪,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৪৮ বার

সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধার জমি দখলের চেষ্টার অভিযোগ ওঠেছে। সোমবার (২২ জানুয়ারি) জাতীয় প্রেসকাবে এক সংবাদ সম্মেলন এ অভিযোগ করা হয়। এতে বলা হয়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব এ কে এম টিপু সুলতানের যোগসাজসে মুক্তিযোদ্ধা মো: ফজলুর রহমানের সম্পত্তি দখলের চেষ্টা করা হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে ওই মুক্তিযোদ্ধার ছেলে এ কে এম শাহাদাত হোসেন বলেন, আমার পিতা জীবনের সকল সঞ্চিত অর্থ দিয়ে ১৯৮১ ও ১৯৮৩ ইং সালে রাজধানী ঢাকার মিরপুর রূপনগর আবাসিক এলাকায় ১৭ কাঠার একটি প্লট ক্রয় করেন এবং দখল বুঝে পান। সেই থেকেই ৩.৫ কাঠার উপরে টিনসেড ঘর করে আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করতে থাকি। কিন্তু ২০০৯ইং সালে হঠাৎ করে জানতে পারি জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ উক্ত ১৭ কাঠা প্লটটি অধিগ্রহণ করেছে।

এরপর জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ প্লট আকারে জমি বিন্যাস করলে আমার পিতার ক্রয়কৃত ১৭ কাঠার জমির মধ্যে বসবাসকৃত রূপনগর আবাসিক এলাকার ৩.৫ কাঠার ২/১ নং প্লটটি জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের তৎকালীন মাঠ কর্মকর্তা মৌখিকভাবে আমাদের বুঝিয়ে দেন এবং বাকী অংশের ক্ষতিপুরণ দিবে বলে আশ্বস্থ করেন। পরবর্তিতে তাদের পরামর্শে প্লটটি বরাদ্দের জন্য আমার পিতা বিধি মতে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদনও করেন।

২০১২ইং সালে ‘আশরাফ উদ্দিন আহম্মেদ’ পরিচয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তির নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী আমাদের প্লটটি বেদখল করার জন্য অতর্কিত হামলা করে। উক্ত ‘আশরাফ উদ্দিন আহম্মেদ’ দাবি করেন যে, বিগত ২২/০২/২০১২ইং তারিখে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ তার নামে প্লটটি “বিকল্প বরাদ্দ” দেন। স্থানীয় লোকজনের বাধার মুখে একপর্যায়ে আশরাফ উদ্দিন আহম্মেদ ও তার সন্ত্রাসীরা পিছু হটে।

এ কে এম শাহাদাত হোসেন বলেন, পরবর্তিতে খোঁজ নিয়ে জানতে পারি, বিকল্প বরাদ্দপ্রাপ্ত উক্ত আশরাফ উদ্দিন আহম্মেদ নামের কোনো ব্যক্তির অস্তিত্বই নাই। জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের তৎকালীন উপ-পরিচালক ও বর্তমানে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব এ কে এম টিপু সুলতান (পরিচিতি নং-৫৯৯৯) তারই এক আত্মীয়কে ‘আশরাফ উদ্দিন আহম্মেদ’ সাজিয়ে বিকল্প প্লট বরাদ্দের জন্য জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ বরাবর তারিখ বিহীন ও প্লট নম্বরের উপর ওভার রাইটিং করা একটি তঞ্জকি আবেদন করেন। অতঃপর ২২/০২/২০১২ ইং তারিখে এ কে এম টিপু সুলতান নিজ স্বাক্ষরে উক্ত প্লটটি ভুয়া ‘আশরাফ উদ্দিন আহম্মেদ’ এর নামে বিকল্প বরাদ্দপত্র ইস্যু করেন। এরপরই এ কে এম টিপু সুলতানের প্রত্যক্ষ ইন্দনে ভুয়া ‘আশরাফ উদ্দিন আহম্মেদ’ সন্ত্রাসী দিয়ে প্লটটি বেদখলের চেষ্টা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমানের পরিবারের বেশ কয়েকজন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেয়ার জন্য ফজলুর রহমানকে অ্যাম্বুলেন্সে করে প্রেসকাবে নিয়ে আসা হয়। তবে হঠাৎ করেই শরীর বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাকে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত করা হয়নি।