শুক্রবার ২৫শে মে ২০১৮ সকাল ০৮:২৮:০১

Print Friendly and PDF

২৩ আসামির ফাঁসি : পলাতকদের দ্রুত গ্রেফতার করুন


সম্পাদকীয়

প্রকাশিত : বৃহঃস্পতিবার ১৮ই মে ২০১৭ সকাল ১১:৪৭:১২, আপডেট : শুক্রবার ২৫শে মে ২০১৮ সকাল ০৮:২৮:০১,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ৪৬৫ বার

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে আওয়ামী লীগের চারকর্মীকে হত্যার দায়ে ২৩ আসামিকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ দ্বিতীয় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ কামরুন নাহারের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন, আবুল বাশার কাশু, ডালিম, ইয়াকুব আলী, রফিক, হালিম, রুহেল, শাহাবুদ্দিন, লিয়াকত আলী মাস্টার, সিরাজ উদ্দিন, ইদ্রিস আলী, মোহাম্মদ হোসেন, আবু কালাম, আহাদ আলী, ইউনুছ আলী, জহির উদ্দিন, ফারুক হোসেন, গোলাম আযম, আব্দুল হাই, খোকন, আল-আমিন, রুহুল আমিন, তাজুল ইসলাম ও হারুন।

২০০২ সালের ১২ মার্চ বর্তমান আড়াইহাজার থানা ছাত্রলীগের সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের ছোট ভাই বারেক, ফুফাতো ভাই বাদল, আওয়ামী লীগের কর্মী ফারুক ও কবীরকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে নির্যাতনের পর আগুনে পুড়িয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে তৎকালীন গোপালদী ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আবুল বাশার কাশু ও তার লোকজন। এ ঘটনায় ২৩ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে পুলিশ। দীর্ঘ বিচারিক কার্যক্রম শেষে আজ আদালত এই মামলার রায় ঘোষণা করলেন। দেরিতে হলেও এ রায় স্বস্তির। দণ্ডপ্রাপ্তদের শাস্তি নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করাই হবে সংশ্লিষ্টদের দায়িত্ব।

সমাজে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার জন্য অপরাধীর শাস্তি নিশ্চিতের কোনো বিকল্প নেই। আমাদের দেশে রাজনৈতিক মোড়কে অনেক অপরাধ সংঘটিত হয়। নানা কারণে সেই অপরাধের বিচার হয় না অনেক সময়। এই মামলার ক্ষেত্রেও দীর্ঘ সময় চলে গেছে। অপরাধটি এমন এক সময়ে সংঘটিত হয়েছে যখন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ক্ষমতায়। সংখ্যালঘু নির্যাতন থেকে শুরু করে বিরোধীপক্ষের রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের ওপর চালানো সেই বর্বর নির্যাতনের কথা সকলেরই জানা। আসামিরা পাশবিক নির্যাতন করে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করে। স্বস্তির বিষয় যে অবশেষে কাঙ্খিত রায় পাওয়া গেল। দণ্ডপ্রাপ্তদের অনেকেই পলাতক। তাদের গ্রেফতার করতে না পারলে দণ্ড কার্যকর করা যাবে না। এছাড়া অনেকগুলো আইনি ধাপও পার হতে হবে। সেগুলোতেও যেন ন্যায় বিচার পান বিচারপ্রার্থীরা এমনটিই প্রত্যাশিত। অপরাধের সাজা হলে অপরাধীরা একটি বার্তা পায়। যেটি অপরাধ দমনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এই বিষয়টি মনে রেখে সংশ্লিষ্ট সকলকে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করতে হবে।

 

সময়নিউজ ডট নেট//সাফায়েত