বৃহঃস্পতিবার ২১শে জুন ২০১৮ সকাল ১০:৫১:৩৯

Print Friendly and PDF

আরসার অস্ত্রবিরতি প্রত্যাখ্যান মিয়ানমারের


আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

প্রকাশিত : সোমবার ১১ই সেপ্টেম্বর ২০১৭ দুপুর ১২:০১:১১, আপডেট : বৃহঃস্পতিবার ২১শে জুন ২০১৮ সকাল ১০:৫১:৩৯,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩০১ বার

বুথিডং জেটিতে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। ছবিটি সম্প্রতি রয়টার্সে প্রকাশিত

সময়নিউজ ডট নেট:
ঢাকা: দ্য আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা) ঘোষিত এক মাসের অস্ত্রবিরতি প্রত্যাখ্যান করেছে মিয়ানমার সরকার। দেশটির সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘সন্ত্রাসীদের’ সঙ্গে তারা কোনো সমঝোতায় যাবে না।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম টুইটারে গতকাল রোববার অস্ত্রবিরতির ঘোষণা দিয়ে আরসা বলে, মানবিক সংকটের কথা বিবেচনা করে তারা অস্ত্রবিরতিতে যেতে চায়। এক বিবৃতিতে আরসা মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে অস্ত্র ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান জানায়।

বিবিসির খবরে জানা যায়, এর প্রতিক্রিয়ায় মিয়ানমার সরকারের মুখপাত্র জ হাতে গতকাল এক টুইটে বলেন, ‘সন্ত্রাসীদের’ সঙ্গে সমঝোতা করার কোনো নীতি তাদের নেই।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে কয়েকটি পুলিশ ও সেনাচৌকিতে হামলার সূত্র ধরে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে দমন অভিযান শুরু করে দেশটির সেনাবাহিনী ও পুলিশ। আরসা গত ২৫ আগস্ট ওই হামলা চালায় বলে অভিযোগ মিয়ানমার সরকারের। গত ২৫ আগস্ট রাখাইনের ৩০টি পুলিশ ও সেনাচৌকিতে হামলা হয়। এরপর সেখানে সেনা অভিযান শুরু হলে প্রাণভয়ে সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশের পথে রোহিঙ্গারা আসতে থাকে। পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা সীমান্তের ওপারে সেনাবাহিনীর হত্যা, ধর্ষণ, ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও পরিকল্পিত দমন অভিযানের বিবরণ দেয়। গত দুই সপ্তাহে বাংলাদেশে প্রায় ২ লাখ ৭০ হাজার রোহিঙ্গা ঢুকেছে বলে জানিয়েছে ইউএনএইচসিআর।