শনিবার ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ সকাল ১০:২২:৫১

Print Friendly and PDF

ইমরান খানই পাকিস্তানের ২২তম প্রধানমন্ত্রী


আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

প্রকাশিত : শুক্রবার ১৭ই আগস্ট ২০১৮ রাত ১০:২৩:২৮, আপডেট : শনিবার ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ সকাল ১০:২২:৫১,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৪৫ বার

অবশেষে পাকিস্তানের ২২তম প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে জয়ী পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) প্রধান ইমরান খান। শনিবার শপথ নেবেন তিনি। খবর ডনের।

শুক্রবার বিকেলে জাতীয় পরিষদের অধিবেশনে ভোটাভুটির মধ্য দিয়ে সাবেক এই ক্রিকেট তারকাকেই প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বেছে নেন দেশটির নবনির্বাচিত সাংসদরা। ১৭৬ ভোট পেয়ে জয়ী হন ৬৫ বছর বয়সী ইমরান। তার প্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তান মুসলিম লীগ নওয়াজের (পিএমএল-এন) প্রধান শাহবাজ শরিফ পেয়েছেন মাত্র ৯৬ ভোট।

স্থানীয় সময় অনুযায়ী এ দিন বিকেল সাড়ে ৩টায় প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনে ভোটাভুটির আনুষ্ঠানিকতা শুরুর কথা থাকলেও তা শুরু হয় প্রায় এক ঘণ্টা পর। সাধারণ নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি আসন পাওয়া পিটিআই প্রার্থী ইমরান খানের প্রতি দলের সবার সমর্থন থাকলেও শেষ পর্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখোমুখি হতে হয় তাকে। ভোটাভুটি শেষে ইমরানের জয় ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই প্রতিবাদে ফেটে পড়ে বিরোধী দল পিএমএলএনের সাংসদরা।

তারা চিৎকার করতে থাকেন, 'এ ফল গ্রহণযোগ্য নয়, নওয়াজ শরিফই দেশের প্রধানমন্ত্রী।'

নতুন স্পিকার যখন সংসদে শোরগোল থামানোর চেষ্টা করছিলেন, তখন ইমরান খানকে দলীয় সাংসদদের অভিনন্দনের জবাবে জয়ের হাসি হাসতে দেখা যায়।

২৫ জুলাই অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে পিটিআই পেয়েছে ১১৬টি আসন। দলটির সঙ্গে যোগ দিয়েছে ৯ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী। ফলে পিটিআইর আসন সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২৫টি। সরাসরি নির্বাচনে প্রাপ্ত আসন সংখ্যার অনুপাতে গত সপ্তাহে দলটি ৩৩টি সংরক্ষিত আসন বরাদ্দ পায়। এতে পিটিআই সব মিলিয়ে ১৫৮টি আসন পায়। তবে ব্যক্তিগতভাবে পাঁচটি আসনে বিজয়ী ইমরান খানকে একটি আসন রেখে বাকিগুলো ছেড়ে দিতে হয়েছে। পিটিআই নেতা গোলাম সারওয়ার খান ও তাহির সাদিককেও একটি করে আসন ছেড়ে দিতে হয়েছে। এতে দলটির ছয় আসন কমে যায়। এসব আসনে এখন উপনির্বাচন হবে। এদিকে পিটিআইর মিত্র পিএমএল-কিউর আসন সংখ্যাও অর্ধেক কমে গেছে, দলটির নেতা চৌধুরী পারভেজ এলাহি পাঞ্জাব বিধানসভার স্পিকার পদপ্রার্থী এবং তিনি পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষের দুটি আসনই ছেড়ে দিয়েছেন।