বৃহঃস্পতিবার ২৩শে নভেম্বর ২০১৭ সকাল ০৭:৫৪:০৩

Print Friendly and PDF

‘আল্লাহু আকবার' বলে হামলাগুলশানে সন্ত্রাসী-পুলিশ গোলাগুলি: আহত ২০ (ভিডিও)


নিজস্ব প্রতিবেদক:

প্রকাশিত : শুক্রবার ১লা জুলাই ২০১৬ রাত ১১:১৯:৩১, আপডেট : বৃহঃস্পতিবার ২৩শে নভেম্বর ২০১৭ সকাল ০৭:৫৪:০৩,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ৯৪৫৯ বার

সময়নিউজ ডট নেট:
ঢাকা: রাজধানীর গুলশানে হলি বেকারি রেস্টুরেন্টে বড় ধরনের সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার রাতে সংঘবদ্ধ বন্দুকধারীদের হামলায় ২০ জন আহত হয়েছে। প্রথমদিকে ৪ জন নিহতের খবর পাওয়া গেলেও আইন-শৃংখলাবাহিনী তা নিশ্চিত করেনি।   

‘আল্লাহু আকবার’ ধ্বনি উচ্চারণ করে তারা গুলি ছাড়াও মুহুর্মুহু বোমা ফাটায়। এতে পুরো এলাকাজুড়ে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। হামলার পর ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন র‌্যাব মহাপরিচালক।

রাত পৌনে ৯টায় শুরু হওয়া হামলা এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাত ১১টা নাগাদ চলছিল। রেস্টুরেন্টে সন্ত্রাসীরা  অবস্থান করছে বলে একাধিক সূত্র জানিয়েছে।

এদিকে আহতদের মধ্যে সতজনকে গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। নিহতদের পরিচয় জানা যায়নি। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

শুক্রবার রাত পৌনে ১০টার দিকে গুলশান থানার ডিউটি অফিসার সাইদুর রহমান জানান, রাত পৌনে ৯টায় একদল সন্ত্রাসী গুলশান-২ নম্বরের ৭৯ নম্বরে সড়কের ওই রেস্টুরেন্টে হামলা চালায়।

সন্ত্রাসীদের স্যংখ্যা প্রথমদিকে ৮/১০ জন মনে হলেও পরবর্তীতে দেখা যায়, ২০ থেকে ২৫ জনের সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীগোষ্ঠি পুরো হোটেলটি জিম্মি করে ফেলে। হোটেলটিতে ২০ জনের মতো বিদেশী নাগরিক রয়েছেন। এর আগে সন্ত্রাসীরা ফাঁকা গুলি গুলি করতে করতে হোটেলটির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয়। তাদের হাতে ক্ষুদ্র আগ্নেয়াস্ত্র, চাপাতি এবং তলোয়ারও দেখা গেছে।

খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গেলে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। পরে পুলিশও সন্ত্রাসীদের দিকে পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে তুমুল গোলাগুলি চলতে থাকে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা গুলির পাশপাশি পর পর বেশ কয়েকটি শক্তিশালী বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়।

এ সময় যারা ভয়ে ছাদে ওঠে গিয়েছিলেন তারা জীবন বাঁচাতে নিচে লাফিয়ে পড়েন। এতেও কয়েকজন আহত হন।

আহতদের মধ্যে সুমন রেজা নামে হোটেলটির সুপারভাইজার সাংবাদিকদের বলেন, 'সন্ত্রাসীরা আল্লাহ আকবার বলে হামলা শুরু করে। এ সময় ভয়ে তারা দিগ্বিদিক পালাতে থাকেন। কেউ কেউ চেয়ার-টেবিলের নিচে শুয়ে পড়েন।

রাত সাড়ে ১০টার দিকে পর পর কয়েকটি শক্তিশালী বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এ সময় আহত অবস্থায় কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে বেরিয়ে আসতে দেখা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পুলিশ ও র‌্যাবের সদস্যরা যখনই হোটেলটির কাছে যাওয়ার চেষ্টা করছেন তখনই তাদেরকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়া হচ্ছে। ঘটনার আকস্মিকতায় আইন-শৃংখলা বাহিনীকে অনেকটা হতবিহ্বল হতে দেখা গেছে।

এদিকে রাত ১১টার দিকে র‌্যাবের একটি হেলিকপ্টার ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। আক্রান্তস্থলটিকে ঘিরে হেলিকপ্টারটিকে প্রদক্ষিণ করতে দেখা যায়।

তবে একটি সূত্র বলছে, রেস্টুরেন্টের ভেতর সন্ত্রাসীরা বেশ কয়েকজনকে জিম্মি করতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু এ বিষয়ে বিস্তারিত এখনও জানা যায়নি।

একজন পুলিশ কর্মকর্তা জানান, রাজধানীতে এমন হামলা হবে তারা চিন্তাও করতে পারেননি। তার চাকরিজীবনে কখনও এ রকম পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয়নি। তবে সন্ত্রাসীরা পার পাবে না। তাদেরকে সর্বশক্তি দিয়ে মোকাবেলা করা হবে।

ভিডিওতে দেখুন: