মঙ্গলবার ২২শে জানুয়ারী ২০১৯ রাত ১২:২৪:২০

Print Friendly and PDF

মোটরসাইকেল না দেয়ায় এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে পিটিয়ে হত্যা


জয়পুরহাট প্রতিনিধি:

প্রকাশিত : শুক্রবার ১১ই মে ২০১৮ বিকাল ০৪:৩০:৪২, আপডেট : মঙ্গলবার ২২শে জানুয়ারী ২০১৯ রাত ১২:২৪:২০,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ৪৪৬ বার

জয়পুরহাটে ফজলে রাব্বী (২০) নামে এক এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে প্রকাশ্যে হকিস্টিক দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। নিহত রাব্বীর পরিবারের অভিযোগ, মোটরসাইকেল দিতে রাজি না হওয়ায় রাব্বীকে ওই এলাকার রেজা নামে এক যুবক ও তার সহযোগী হত্যা করেছে।

এ ঘটনায় রেজা ও তার সহযোগীকে আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। জয়পুরহাট শহরের বিহারীপাড়া (সওদাগর) সংলগ্ন বঙ্গবন্ধু সড়কে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ফজলে রাব্বী জেলার আক্কেলপুর উপজেলার রোয়ার গ্রামের মালয়েশিয়াপ্রবাসী সেলিম রেজার ছেলে। সে জয়পুরহাট শহীদ জিয়া কলেজে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এবারের এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিল।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ছেলে ফজলে রাব্বী যাতে সুন্দর ও ভালো পরিবেশে থেকে লেখাপড়া করে ভালো মানুষ হতে পারে- এ জন্য জয়পুরহাট শহরের জামালগঞ্জ সড়কের বিহারীপাড়া মহল্লায় বাসা ভাড়া নেয় তার পরিবার। মা লিপি আরাকে নিয়ে ওই ভাড়ার বাসায় থেকে জয়পুরহাট শহীদ জিয়া কলেজে লেখাপড়া করত রাব্বী। ভালো করে লেখাপড়া করার জন্য বাবা তার ছেলের সব চাওয়া-পাওয়া পূরণ করতেন। তাই ছেলের সখ পূরণ করতে তাকে প্রায় আড়াই লাখ টাকা মূল্যের একটি মোটরসাইকেল কিনে দেন। কিন্তু ভাগ্যের কী নির্মম পরিহাস! ওই সখের মোটরসাইকেলটিই তার কাল হয়ে গেল।

জয়পুরহাট শহীদ জিয়া কলেজের ছাত্র রাব্বী এবার মঙ্গলবাড়ি কলেজ কেন্দ্র থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছিল। বৃহস্পতিবার তার পরীক্ষা শেষ হয়।

ভর্তি পরীক্ষার কোচিং করতে রাত ১১টার নৈশকোচে তার ঢাকায় যাওয়ার কথা ছিল। সে অনুযায়ী রাব্বী প্রস্তুতি নিচ্ছিল। ঢাকাগামী নৈশকোচের টিকিটও কেনা হয়েছিল। রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই একই মহল্লার যুবক রেজা তাকে মোবাইল ফোনে ডেকে বিহারীপাড়ায় বঙ্গবন্ধু সড়কে নিয়ে যায়।

সেখানে যাওয়ার পর রেজা রাব্বীর কাছ থেকে তার মোটরসাইকেলটি চায়। কিন্তু রাব্বী রাতে ঢাকা চলে যাবে বলে রেজাকে মোটরসাইকেল দিতে অস্বীকৃতি জানায়। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি ও ঝগড়া হয়।

একপর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে রেজা ও তার অপর সহযোগী পাশের একটি ওষুধের দোকান থেকে হকিস্টিক এনে রাব্বীকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে নেয়ার পথে রাব্বীর মৃত্যু হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জয়পুরহাট সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মমিনুল হক জানান, ময়নাতদন্তের জন্য রাব্বীর লাশ রাতেই জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়।

এ ঘটনায় পরদিন শুক্রবার নিহত ফজলে রাব্বীর মা লিপি আরা বাদী হয়ে রেজাসহ ২ জনকে আসামি করে জয়পুরহাট থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

শনিবার মালয়েশিয়া থেকে বাবা সেলিম রেজা বাংলাদেশে ফিরে আসার পর রাব্বীর লাশ দাফন করা হবে বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।