শুক্রবার ১৫ই নভেম্বর ২০১৯ ভোর ০৪:২৪:৪২

Print

একাধিক স্থানে দ্বৈত কমিটি গঠনের অভিযোগ শ্রমিক লীগের সভাপতি-সম্পাদকের বিরুদ্ধে


নিজস্ব প্রতিেবদক:

প্রকাশিত : বুধবার ২৩শে অক্টোবর ২০১৯ সন্ধ্যা ০৬:৫৩:০২, আপডেট : শুক্রবার ১৫ই নভেম্বর ২০১৯ ভোর ০৪:২৪:৪২,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ৬৭৮ বার

নিজেদের ব্যক্তি স্বার্থ হাসিল করতে একাধিক স্থানে দ্বৈত কমিটি গঠনের অভিযোগ উঠেছে জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে। সম্প্রতি শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন উপলক্ষে অনুষ্ঠিত এক প্রস্তুতি বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে তুমুল বাক বিতন্ডা হয়েছে।

আগামীকাল বৃহস্পতিবার অভিযোগকারী কমিটির নেতারা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অন্যায়ভাবে দেয়া এসব কমিটির বিষয়ে একটি লিখিত চিঠি জমা দেবেন বলে জানা গেছে। তারা বলছেন, এসব পকেট কমিটি বাতিল না করলে তারা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে যাবেন।

জানা গেছে, নরসিংদী, যমুনা অয়েল কোম্পানী, মানিকগঞ্জ, টাঙ্গাইলসহ কয়েকটি স্থানে কমিটি থাকা সত্ত্বেও নতুন করে কমিটি দেয়া হয়েছে। এসব কমিটি দিয়েছেন শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ ও সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম। ফলে দ্বৈত কমিটি নিয়েই চলছে সংগঠনের কাজ। এ নিয়ে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এ বিষয়ে নরসিংদী শ্রমিক লীগের আহবায়ক ও পৌর প্যানেল মেয়র মো: রিপন সরকার বলেন, আমরা গত ১৬ তারিখে সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি করার জন্য কেন্দ্রে চিঠি দিয়েছিলাম। কিন্তু কোন কারণ ছাড়াই এখানে সম্মেলনের আগের দিন একটি কমিটি দেয়া হয়েছে। এটি সম্পূর্ণ অন্যায়। ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিলের জন্যই নতুন কমিটি দেয়া হয়েছে। এর বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার আমরা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বরবার একটি লিখিত অভিযোগপত্র জমা দেব। সেখানে আমরা অন্যায়ভাবে দেয়া আহবায়ক কমিটির বিষয়টি তুলে ধরবো।

একইভাবে মূল কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণের আগেই একটি আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে যমুনা অয়েল কোম্পানীতেও। এখানকার মূল কমিটির সভাপতি মো: কাশেম মোল্লা সবুজ বলেন, আমাদের কমিটির নির্ধারিত মেয়াদই শেষ হয়নি। অথচ এখানে একটি আহবায়ক কমিটি দেয়া হয়েছে। তিনি জানান, আমাদের মূল কমিটি বাতিল না করেই এই আহবায়ক কমিটি দেয়া হয়েছে। কি কারণে দেয়া হয়েছে সেটি জানিনা। তিনি বলেন, যাদের নিয়ে আহবায়ক কমিটি করা হয়েছে তাদের অনেকেই অনুপ্রবেশকারী। মূল কমিটিই এখানে সংগঠনের সব কাজ করছে।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ বলেন, বিষয়টি অনেকটা ভুল বুঝাবুঝি থেকে হয়েছে। আগামী ৯ নভেম্বর আমাদের জাতীয় কাউন্সিল। কাউন্সলের মাধ্যমে গঠিত নতুন কমিটি এই সব দ্বৈত কমিটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।