মঙ্গলবার ২১শে মে ২০১৯ সকাল ০৭:১৯:০০

Print Friendly and PDF

ফেনীর এসপি প্রত্যাহারনুসরাত হত্যায় বোরকা কেনার টাকা দেন কাউন্সিলর


নিজস্ব প্রতিবেদক:

প্রকাশিত : সোমবার ১৩ই মে ২০১৯ সকাল ০৯:৫২:১২, আপডেট : মঙ্গলবার ২১শে মে ২০১৯ সকাল ০৭:১৯:০০,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ৯০ বার

ফাইল ছবি

ফেনীর সোনাগাজী পৌরসভার কাউন্সিলর ও সোনাগাজী পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাকসুদ আলম অধ্যক্ষ এস এম সিরাজ-উদ-দৌলাকে ১০ হাজার টাকা দিয়েছিলেন। এই টাকা দিয়ে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত বোরকা, হিজাব, কেরোসিন ও দড়ি কেনা হয়েছিল বলে জানিয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

গতকাল রাজধানীর মালিবাগে সিআইডির প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্লা নজরুল ইসলাম। এদিকে ফেনীর পুলিশ সুপার (এসপি) জাহাঙ্গীর আলমকে গতকাল প্রত্যাহার করে পুলিশ সদর দপ্তরে সংযুক্ত করা হয়েছে।

বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্লা নজরুল ইসলাম বলেন, ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় টাকা লেনদেন হলেও মানি লন্ডারিংয়ের প্রমাণ পাওয়া যায়নি। আমরা এখন পর্যন্ত যে তথ্য পেয়েছি, তাতে দেখা যায় হত্যাকান্ডে র আগে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মাকসুদ আলম অধ্যক্ষকে ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা দিয়েছিলেন। বিষয়টি আমরা আরও তদন্ত করে দেখছি।

এর আগে সিআইডির পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, নুসরাত হত্যায় মোটা অঙ্কের টাকা মানি লন্ডারিং হয়েছে কিনা, তা বের করতেই সিআইডি ঘটনাটি তদন্ত শুরু করে। মানি লন্ডারিংয়ের প্রমাণ পাওয়া গেলে জড়িতদের বিরুদ্ধে অর্থ জালিয়াতির মামলাও করা হবে।

গত ২৭ মার্চ যৌন হয়রানির অভিযোগে নুসরাতের মায়ের করা মামলায় অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। কারাগার থেকেই তিনি মামলা তুলে নেওয়ার জন্য নুসরাতের পরিবারকে চাপ দিতে থাকেন। ৬ এপ্রিল নুসরাত মাদ্রাসায় গেলে তার শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয় অধ্যক্ষের সহযোগীরা। ১০ এপ্রিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নুসরাত মারা যান।