সোমবার ২১শে অক্টোবর ২০১৯ সকাল ০৬:১৮:৩৪

Print

সন্দেহভাজনকে খুঁজছে পুলিশথানায় ঢুকে পুলিশের পিস্তল ‘চুরি’


ডেস্ক রিপোর্ট:

প্রকাশিত : মঙ্গলবার ২রা জুলাই ২০১৯ সন্ধ্যা ০৬:৩৮:৩৭, আপডেট : সোমবার ২১শে অক্টোবর ২০১৯ সকাল ০৬:১৮:৩৪,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৯২ বার

শাহবাগ থানার পুলিশ ব্যারাক থেকে এক সহকারী উপপরিদর্শকের (এএসআই) পিস্তল চুরির ঘটনায় দায়ের করা মামলায় সন্দেহভাজন এই ব্যক্তিকে খুঁজছে পুলিশ। অজ্ঞাতনামা সন্দেহভাজন হিসেবে ওই ব্যক্তির পরিচয় খুঁজে পেতে ছবি ও ভিডিও প্রকাশ করে সহযোগিতা চেয়েছে শাহবাগ থানা পুলিশ।

ঢাকা মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মো. মাসুদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মামলাটি তদন্তকালে তদন্তকারী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলের আশাপাশের সিসিটিভি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে অজ্ঞাতনামা সন্দেহভাজনের ছবি ও ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছেন। ছবিতে প্রদর্শিত ব্যক্তির সন্ধান বা কোনো পরিচয় কিংবা তথ্য পাওয়া গেলে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানানোর জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

শাহবাগ থানা সূত্রে জানা যায়, গত ৫ মে শাহবাগ থানার এএসআই হিমাংশু কুমার সাহা ডিউটি শেষে দুপুরে শাহবাগ থানার পুলিশ ব্যারাকের দ্বিতীয় তলায় তার বিছানায় বিশ্রামের জন্য যায়। এ সময় তার পরিহিত পুলিশ বেল্টের সঙ্গে পিস্তলের কাভারে ভর্তি একটি ৭.৬২ এমএম পিস্তল, দুটি ম্যাগাজিনে ১৬ রাউন্ড গুলি খাটের ওপর রেখে বিশ্রাম করছিলেন।

এরপর বিশ্রাম শেষে তিনি বিকেল আনুমানিক ৩টা ৫৫ মিনিটে থানা ব্যারাকের তৃতীয় তলায় টয়লেটে যান। পরে বিকেল ৪টার দিকে টয়লেট থেকে নিজ বেডে এসে দেখে পুলিশের বেল্টটি তার বালিশের সামনে পড়ে আছে; কিন্তু গুলি ভর্তি পিস্তল নাই। তখন অনেক খোঁজাখুজি করেও পিস্তলটি না পেয়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে জানিয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা করেছেন এএসআই হিমাংশু কুমার সাহা।

পুলিশ জানায়, ওই মামলাটি তদন্তকালে তদন্তকারী কর্মকর্তা ঘটনাস্থলের আশাপাশের সিসিটিভি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে অজ্ঞাতনামা সন্দেহভাজনের ছবি ও ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেন। ভিডিও ফুটেজে লাল চিহ্নিত গায়ে সাদা কালো রংয়ের চেক শার্ট ও পরণে ফুল প্যান্ট, এবং পিঠে কালো রংয়ের ব্যাগ বহনকারী ব্যক্তিকে উক্ত ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে খুঁজছে পুলিশ।

মামলার সুষ্ঠু তদন্ত ও প্রকৃত অপরাধীকে সনাক্ত করতে এবং ছবিতে প্রদর্শিত ব্যক্তির সন্ধান পেতে তার পরিচয়ের জানতে সর্বসাধারণের সহযোগিতা চেয়েছে শাহবাগ থানা পুলিশ।