বুধবার ১৩ই নভেম্বর ২০১৯ রাত ০৮:৫০:৫৮

Print

চট্টগ্রামে সবজির দাম বৃদ্ধি


জেলা সংবাদদাতা/চট্টগ্রাম:

প্রকাশিত : শুক্রবার ১৬ই আগস্ট ২০১৯ রাত ০৯:০৯:০৮, আপডেট : বুধবার ১৩ই নভেম্বর ২০১৯ রাত ০৮:৫০:৫৭,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৯৬ বার

কোরবানির ঈদের পর সবজির চাহিদা তুলনামূলক একটু বেশি থাকে। এ চাহিদাকে পুঁজি করে এবং বাজারে সবজির কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে দাম বেশি নেওয়া হচ্ছে। প্রায় সব ধরনের সবজির দাম ১০ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত বেশি বিক্রি হচ্ছে। আজ শুক্রবার নগরের রেয়াজুদ্দীন বাজার, বক্সির হাট, সিরাজুদ্দৌলা রোড ও চকবাজারে খোঁজ নিয়ে এ তথ্য জানা যায়।

শুক্রবার নগরের বক্সির হাটে প্রতিকেজি কাঁকরোল বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৭০ টাকা। এক সপ্তাহ আগেও কাকরোল বিক্রি হয়েছিল ৪০ থেকে ৫০ টাকা। প্রতিকেজি বেগুন ৬০ টাকা, কাঁচা পেঁপে ৪৫ টাকা, বরবটি ৬০ টাকা, পটল ৫০ টাকা, ঢেড়স ৪০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০ টাকা, গাজর ৬০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৪০ টাকা, লাউ ৬০ টাকা, শিম ৮০ টাকা, ঝিঙ্গা ৫০ টাকা, করলা ৪০ টাকা, কচু ৬০ টাকা, ক্যাপসিকাম ২৮০ টাকা, শসা ৮০ টাকা, কাঁচা মরিচ ১৩০ টাকা, আলু ২২ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

বক্সির হাটের সবজি বিক্রেতা আনিসুল ইসলাম বলেন, ‘কোরবানির পর সব ধরনের সবজির সরবরাহ কম হয়েছে। কিন্তু এই সময় সবজির চাহিদা তুলনামূলক বেশি। তাই হয়তো কয়েকদিন দাম একটু বেশি হচ্ছে। আগামী কয়েকদিন পর সবজির দাম কমে যাবে।’
তবে বাজারে মাংস ও মাছের দাম স্বাভাবিক। তবে ফার্মের মুরগির দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। শুক্রবার বাজারে প্রতিকেজি ফার্মের মুরগি বিক্রি হয়েছে ১৩০ টাকা, লেয়ার মুরগি ২০০ টাকা ও দেশি মুরগি ৫০০ থেকে ৫৫০ টাকা। প্রতিকেজি খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৯০০ টাকা।

প্রতিকেজি দেশি রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে ৪০০ টাকা, ভারতীয় রুই ২৫০-৩০০ টাকা, মিয়ানমারের রুই মাছ ৩২০ টাকা, কাতাল মাছ ৪৫০ টাকা, ফার্মের কৈ মাছ ২৫০ টাকা, তেলাপিয়া ১৫০ টাকা, ফার্মের মাগুর ৪০০-৫০০ টাকা, রূপচাঁদা ৬০০-৭০০ টাকা, সাদা কোরাল ৭০০ টাকা, লাল কোরাল ৬৫০ টাকা, বড় চিংড়ি এক হাজার থেকে ১২০০ টাকা, পাবদা ৫০০ টাকা।