মঙ্গলবার ১৯শে ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সকাল ০৮:২৩:৪২

Print Friendly and PDF

কাতারের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক জয়


ক্রীড়া ডেস্ক:

প্রকাশিত : রবিবার ১৯শে আগস্ট ২০১৮ বিকাল ০৫:৫৭:৩৩, আপডেট : মঙ্গলবার ১৯শে ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সকাল ০৮:২৩:৪২,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩৭৭ বার

বাংলাদেশের জয়ের নায়ক অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া - ফাইল ছবি

এশিয়ান গেমসের ফুটবলে এর আগেও বেশ কয়েকবার জিতেছে বাংলাদেশ। ১৯৮২ সালে মালয়েশিয়া, ১৯৮৬ সালে নেপাল, ২০১৪-তে আফগানিস্তান। কিন্তু জাকার্তায় আজ বাংলাদেশ যে জয়টা পেল সেটির সঙ্গে তুলনীয় নয় আগের জয়গুলো। কেননা আগামী ২০২২ বিশ্বকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজক কাতার। স্বাভাবিক কারণে স্বাগতিক হিসেবে এই আসরে খেলবে তারা। তা ছাড়া মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম ফুটবল শক্তিধর দেশও তারা। এশিয়ান গেমস ফুটবলে সে কাতারকে হারিয়ে ইতিহাস গড়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ ফুটবল দল। ম্যাচে লাল-সবুজের দল জিতেছে ১-০ গোলে।

এই জয়ের সুবাদে বাংলাদেশ এশিয়ান গেমসের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো দ্বিতীয় পর্বে ওঠে। তিন ম্যাচে এক জয়, এক ড্র এবং এক হারে গ্রুপ রানার্সআপ হয়েই পরের পর্বে ওঠে তারা।

ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় অনুষ্ঠিত ম্যাচে বাংলাদেশের জয়ের নায়ক অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া। ম্যাচের একেবারেই শেষ মুহূর্তে ইনজুরি সময়ে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি।

মাঝমাঠ থেকে পাওয়া একটি বল নিয়ে বক্সে ঢুকে মাটি কামড়ানো শটে বল জালে পাঠান জামাল। তার এই গোলেই শেষ পর্যন্ত জয়ের উল্লাস করে বাংলাদেশ।

এর আগে গ্রুপের দ্বিতীয় ম্যাচে থাইল্যান্ডের সঙ্গে এগিয়ে থেকেও ১-১ গোলে ড্র করেছিল বাংলাদেশের ছেলেরা। অবশ্য প্রথম ম্যাচে উজবিকিস্তানের কাছে তিন গোলে হেরেছিল তারা।

বাংলাদেশ এমন একটি দলকে হারিয়েছে যারা শক্তি-সামর্থ্যের বিচারে অনেক এগিয়ে। তা ছাড়া ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে কাতার আছে ৯৮তম স্থানে, আর বাংলাদেশ অনেক পিছিয়ে আছে ১৯৪তম স্থানে। সে দলটির বিপক্ষে জয় পাওয়া অনেক বড় অর্জনই বটে।

অবশ্য ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ ফুটবলে কাতারকে ২-০ গোলে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। অবশ্য সে দলটির সঙ্গে বর্তমান দলটির অনেক পার্থক্য রয়েছে।