বৃহঃস্পতিবার ২৭শে জুন ২০১৯ দুপুর ০২:২২:০৭

Print Friendly and PDF

পুলিশ-বিজিবির ৪ সদস্য আহত৫০ ইয়াবাসহ আটক যুবক ‌‘বন্দুকযুদ্ধের’ নিহত


জেলা সংবাদদাতা/ কক্সবাজার:

প্রকাশিত : বৃহঃস্পতিবার ১৬ই মে ২০১৯ সকাল ০৯:৩২:৫২, আপডেট : বৃহঃস্পতিবার ২৭শে জুন ২০১৯ দুপুর ০২:২২:০৭,
সংবাদটি পড়া হয়েছে ৩২৯ বার

প্রতীকী ছবি

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় পুলিশ ও বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মো. সিরাজ ওরফে সিরু নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। পুলিশ-বিজিবির দাবি, নিহত মো. সিরাজ মাদক পাচারকারী।

বুধবার রাতে সাবরাং ইউনিয়নের আছারবনিয়া এলাকায় ‘বন্দুকযুদ্ধের’ এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ-বিজিবির চার সদস্য আহত হয়েছেন।

বন্দুকযুদ্ধে আগে মঙ্গলবার রাতে ৫০ হাজার ইয়াবাসহ মো. সিরাজকে আটক করা হয়। তিনি সাবরাং ইউনিয়নের আছারবনিয়া গ্রামের ফজল আহমদের ছেলে।

বিজিবি টেকনাফ-২ ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল ফয়সল হাসান খান গণমাধ্যমকে জানান, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সাবরাং আছারবনিয়া এলাকা হতে সিরাজকে ৫০ হাজার ইয়াবাসহ আটক করা হয়। পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে মিয়ানামার হতে ইয়াবার চালান ধরতে বুধবার রাতে অভিযানে যায় পুলিশ ও বিজিবির যৌথ দল। এ সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি দেখে ইয়াবা পাচারকারীরা গুলি ছোঁড়ে। যৌথ বাহিনীও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুঁড়লে কিছুক্ষণ পর ঘটনাস্থলে সিরাজের গুলিবিদ্ধ দেহ ও দুইটি অস্ত্র পাওয়া যায়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসার পর কক্সবাজার স্থানান্তর করে। পরে পথেই সিরাজের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ ও বিজিবির ৪ সদস্য পুলিশের কনস্টেবল আল ফারুক, হেলাল, বিজিবির সিপাহী জহিরুল ইসলাম ও রানা মিয়া আহত হয়েছেন।

এর আগে, সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুর হোসেন ও শরীফ মেম্বারের নেতৃত্বে সাবরাং মাদক প্রতিরোধ কমিটি মঙ্গলবার রাতে বন্দুকযুদ্ধে নিহত পাচারকারীসহ দুজনকে ৫০ হাজার ইয়াবাসহ হাতে নাতে আটক করে আইনশৃংখলা বাহিনীর হাতে তুলে দিয়েছিল।

সাবরাং ইউপি চেয়ারম্যান নুর হোসেন গণমাধ্যমকে আটক করে সিরাজকে আইনশৃংখলা বাহিনীর হাতে তুলে দেওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।