ঢাকা শনিবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ই আশ্বিন ১৪২৭


ভারতীয় মিডিয়ায় বাংলাদেশকে নিয়ে আবারও মিথ্যাচার


প্রকাশিত:
২৫ জুন ২০২০ ২১:০৫

আপডেট:
২৬ জুন ২০২০ ১০:৩০

ছবি: সংগৃহীত

লাদাখের ঘটনার পর বাংলাদেশকে ‘খয়রাতি’ বলে শেষ পর্যন্ত ক্ষমা চেয়েছে ভারতের বহুল প্রচারিত দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা। এবার বাংলাদেশকে নিয়ে নতুন প্রোপাগান্ডা শুরু করেছে। দেশটির মিডিয়ায় প্রচার করা হচ্ছে, "ভারতকে উস্কানি দিয়ে চীন থেকে অস্ত্র কিনছে বাংলাদেশ।"

এশিয়ান নিউজ হাব নামে কাশ্মীর থেকে পরিচালিত সংবাদমাধ্যম ‘বাংলাদেশ ভারতকে উস্কানি দিয়ে এখন চীন থেকে অস্ত্র কিনছে’ শিরোনামে একটি খবর প্রকাশ করেছে।

গণমাধ্যমটি বলেছে, নেপালের পর ভারতের আরেক বন্ধুদেশ বাংলাদেশ চীনের দিকে ভারতের থেকে বেশি ঝুঁকে পড়ছে।

লাদাখের ঘটনার পর এই বিষয়টিকে টেনে এনে গণমাধ্যমটির দাবি- ফোর্সেস গোল ২০৩০ বাস্তবায়নে বাংলাদেশ চীন থেকে অত্যাধুনিক অস্ত্র ক্রয় করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ট্যাংক, ক্ষেপণাস্ত্র এবং অন্যান্য।

এশিয়ারন নিউজ হাবের খবরে বলা হয়েছে, ফোর্সেস গোল ২০৩০ বাস্তবায়নে বাংলাদেশ তাদের সেনাবাহিনীকে মডার্ন গিয়ার যেমন; নাইট ভিশন গগলস, ব্যালেস্টিক হেলমেট, আই প্রটেক্টেড গিয়ার, বুলেটপ্রুফ ভেস্ট, ব্যক্তি যোগাযোগের ব্যবস্থা, পাল্মটপ, জিপিএস ডিভাইস, বিডি-০৮ এসল্ট রাইফেল সাথে কলিমেটর সাইট ইত্যাদি দিয়ে সজ্জিত করছে। ২০০৯ সালের পর থেকে বাংলাদেশ ৬৫০ টি বিটিআর-৮০ আর্মড পারসনেল ক্যারিয়ার, ৫০ টি অটোকার কোবরা ১ এবং ৫০ টি অটোকার কোবরা ২ এবং BOV M11 আর্মড রিকনিসেন্স ভেহিকেল সংগ্রহ করেছে।

গণমাধ্যমটির ভাষ্যমতে, ভারতের সহায়তায় বাংলাদেশ স্বাধীন হলেও চীন থেকে অস্ত্র কেনার এই সিদ্ধান্ত ভারতকে বাংলাদেশ থেকে দূরে সরিয়ে দেবে। এটিই ভারতীয় বিশ্লেষকরা উস্কানি হিসাবেই নিচ্ছেন।

তবে ভারতীয় মিডিয়ায় এমন প্রচারণা চালানো হলেও প্রকৃতপক্ষে বাংলাদেশ সবসময় চীন থেকে অস্ত্র ক্রয় করে। এমনকি বাংলাদেশের প্রধান অস্ত্র সরবরাহকারী দেশ চীন। বিষয়টি নতুন কিছু নয়। চীনের সাথে বাংলাদেশের সামরিক সম্পর্ক অনেক গভীর এবং অনেক আগের।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top