ঢাকা শুক্রবার, ৫ই মার্চ ২০২১, ২১শে ফাল্গুন ১৪২৭


পিরোজপুরে ২ যুবলীগ নেতার হাত-পা ভেঙে দিল স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতারা


প্রকাশিত:
২০ জানুয়ারী ২০২১ ১০:১৬

আপডেট:
২০ জানুয়ারী ২০২১ ১০:১৭

ছবি: সংগৃহীত

পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায় দুই যুবলীগ নেতার হাত-পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় আরেক যুবলীগ নেতাকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার শ্রীরামকাঠী ইউনিয়নের ভীমকাঠী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত মো. মিজানুর রহমান মিঠু (৩২) উপজেলার শ্রীরামাকাঠী ইউনিয়নের বন্দরস্থ মৃত চুন্নু মিয়ার ছেলে ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি; রনি হাওলাদার (২৮) একই এলাকার মৃত জব্বার হাওলাদারের ছেলে ও ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি এবং মো. ফারুক হাওলাদর (৩৫) উপজেলার শ্রীরামকাঠী ইউনিয়নের চলিশা গ্রামের মৃত বেলায়েত হোসেন হাওলাদরের ছেলে ও উপজেলা যুবলীগ সহসভাপতি।

গুরুতর আহত রনি হাওলাদার ও মিজানুর রহমান মিঠুকে রাত সাড়ে ১২টার দিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হামলায় আহত ফারুক হাওলাদার জানান, রাতে তারা তিনজন একটি মোটরসাইকেলে দলীয় কাজ সেরে নাজিরপুর থেকে শ্রীরামকাঠী বন্দরের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় শ্রীরামকাঠী বন্দরের কাছাকাছি ভীমকাঠীর বালাবাড়ির কাছে পৌঁছলে মোটরসাইকেলের আলোতে দেখতে পান প্রধান সড়কের ওপর গাছের গুঁড়ি ফেলা। সেখানে পৌঁছতেই রাস্তার দুপাশে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে থাকা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. আরিফুর রহমান সবুজ ও স্থানীয় মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে প্রায় ২৫-৩০ সন্ত্রাসী দা, লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তাদের হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালায়।

থানা পুলিশের একটি সূত্র জানান, হামলাকারী ও আহতরা একই দলীয়। তবে স্থানীয় রাজনীতির কোন্দলের জের ধরে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ইশিতা সাধক নিপু জানান, হামলায় মিজানুর রহমান মিঠুর বাম হাত-পা ও ডান পা ভেঙে গেছে। এ ছাড়া তার মাথায় গুরুতর জখম রয়েছে। রনির দুহাত-পা ভেঙে গেছে। তার মাথায়ও গুরুতর জখম রয়েছে। তার নাক-মুখেও আঘাত রয়েছে। তাদের দুজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নাজিরপুর থানার ওসি মো. আশ্রাফুজ্জামান জানান, রাতে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top