ঢাকা বৃহঃস্পতিবার, ৬ই মে ২০২১, ২৩শে বৈশাখ ১৪২৮


সেল্ফ আইসোলেশনে যে বিষয়গুলো জানা জরুরি


প্রকাশিত:
২ মে ২০২১ ১৬:১৭

আপডেট:
৬ মে ২০২১ ০৬:৫৯

ছবি: সংগৃহীত

করোনার লক্ষণ দেখা দেওয়ার পর ভয় না পেয়ে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা বলছেন, যারা বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছেন তারা কিছু বিধিনিষেধ মেনে চললেই করোনা থেকে স্বাভাবিক হওয়া সম্ভব।

করোনার লক্ষণ দেখা গেলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী অবশ্যই চিকিৎসা নিতে হবে। এক্ষেত্রে রোগীকে সেল্ফ আইসোলেশনসহ অন্যান্য কিছু বিষয়ে খুবই সতর্ক ও সচেতন থাকতে হবে।

সেল্ফ আইসোলেশনে চিকিৎসা কিংবা অন্যান্য বিশেষ কোনো কারণ ছাড়া বাইরে বের হবেন না। কোনো করোনা সংক্রমিত ব্যক্তির সান্নিধ্যে আসার পরও এমনটা করবেন না। পরিবারের কাউকে আপনার সান্নিধ্যে আসতে দিবেন না। এভাবে অন্তত ১৪ দিন আইসোলেশনে থাকুন।

সেল্ফ আইসোলেশনের জন্য এমন একটি কক্ষ নির্বাচন করুন যেখানে সহজেই বাইরের কেউ শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে আপনাকে খাবার সামগ্রীসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী সরবরাহ করতে পারবেন। হাঁসি-কাশির সময় অবশ্যই নাকে-মুখে রুমাল ধরতে হবে। এক্ষেত্রে মাস্ক পরার বিকল্প নেই। বাড়ির কারো কিছু ব্যবহার করবেন না এবং আপনার ব্যবহার করা কোনো জিনিসও তাদের ব্যবহার করতে দিবেন না। কারো সংস্পর্শ হলেই সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিবেন এবং স্যানিটাইজার ব্যবহার করবেন।

এছাড়াও রোগীর জন্য পৃথক একটি বাথরুমের ব্যবস্থার প্রয়োজন। আর যদি পরিবারের সব সদস্য একই বাথরুম ব্যবহার করেন তাহলে কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। নিজের টাওয়েল, ব্রাশ, সাবান, শ্যাম্পু ইত্যাদি। প্রতিবারই বাথরুম ব্যবহারের পর বাথরুম ফ্লাশ করতে হবে। পরিবারের অন্য যে সকল সদস্য বাথরুমে যাবেন তাদের শুরুতেই কয়েক মগ পানি ঢেলে নেওয়া উচিত।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:


Top